ইফজাল হত্যার আসামি এখন আমরা নিজেই!

প্রকাশিত: ৮:২৮ অপরাহ্ণ, জুন ২৯, ২০২০

ইফজাল হত্যার আসামি এখন আমরা নিজেই!

মীম সালমান : সিলেট এমসি কলেজের মেধাবী ছাত্র কানাইঘাটের কৃতিসন্তান মুহাম্মদ ইফজাল একজ কোরানে হাফেজ, একজন সচ্চ দেশপ্রেমিক ও মানবসভ্যতার আদর্শধারী। ইফজাল ভাই সম্পর্কে আমার ভালোই ধারণা আছে যার সাথে হিফজ বিভাগে পড়েছিলাম শাহবাগ জামিয়ায়।

আফসোস লাগে! সেই ইফজালকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয় সিলেট! তাজা লাশ ফেলে রাখা হয় বাসার পিছনে! পরিবার শাহপরান থানায় মামলা করলে ও এখন পর্যন্ত বেরিয়ে আসেনি কোন তত্ত্ব!! ইফজাল হত্যার ৪/৫ দিন অতিক্রম হলে ও দেখা যায় নি চেতনার ফেরিওয়ালাদের কোন তৎপরতা? নেই কোন প্রতিবাদ! যেই কানাইঘাটে ইফজালের জন্ম আজ সেই কানাইঘাটবাসী ও নিরব! টুকটাক এফবি প্রতিবাদ ছাড়া আর কিছুই নেই। যেই এমসি কলেজে ইফজাল একজন গর্বিত ছাত্র ছিলো সেই এমসি কলেজ আজ নিরব!
আশ্চর্য … এমসি কলেজ কি তার ঐতিহ্য হারিয়ে ফেলেতেছে? এমসি কলেজের ছাত্রকে হত্যা করা হলো অতচ এমসি কলেজের কোন অধ্যাপক থেকে নিয়ে স্টুডেন্ট পর্যন্ত কারো কোন প্রতিবাদ নেই! নির্লজ্জ আমাদের মানবতা। এমসি কলেজের ছাত্ররা তো এমন নিরব হয়ার কথা নাহ, যেখানে আমাদের সহপাঠী ভাই বর্বরতার শিকার হত্যার শিকার সেখানে আমরা কেন নিরব? আমরাকি এত প্রতিবাদহীন হয়ে পড়েছি? আমাদের সহপাঠী ভাইয়ের মৃত্যুকে আমরা সহজে মেনে নেবো? আমাদের হৃদয়ে কি আঘাত লাগেনা?

” প্রিয় কানাইঘাটবাসী জেগে উঠুন ” ইফজাল আমাদের কানাইঘাটের ভাই, কানাইঘাটের কৃতিসন্তান। সে ছিলো আমাদের আগামীর কর্ণধার, আগামীর সপ্ন, আগামীর অহংকার। কিন্তু যে সকল সন্ত্রাসীরা আমাদের এই সপ্নকে ভেঙে দিয়েছে, শেষ করে দিয়েছে একজন কোরানে হাফেজকে! আমরা তাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হই।
প্রিয় কানাইঘাটবাসী” ইফজাল হয়তো আমাদের কিছুই নাহ তবে সে আমাদের কানাইঘাটের সন্তান। ইফজাল কার ছেলে, কার ভাই, কোন মাদ্রাসার ছাত্র, কোন কলেজের ছাত্র, কোন দলের নেতা সেটা দেখার সময় আমাদের নেই।
কারণ সে আমাদের কানাইঘাটের অহংকার। আর আপনারা তো জানেন এই কানাইঘাটবাসী কখনো কারো কাছে মাথা নত করেনাহ। আসুন আমাদের ঐতিহ্যকে সামনে রেখে ইফজাল হত্যার বিচার দাবিতে দলমত নির্বিশেষ এক কাতারে দাড় হই।

প্রিয় “এমসি কলেজের” ভাই / বোনেরা আপনারা তো এই এমসি কলেজের ইতিহাস জানেন। এমসি কলেজের ইতিহাসে এই কলেজের ছাত্র জনতা কখনো কোন অপশক্তির কাছে মাথা নত করেনি? অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে সময়ের অপেক্ষা করেনি? তাহলে কেন আমরা নিরবতা পালন করছি? কেন আমরা এখনো প্রতিবাদহীন হয়ে পড়েছি? কেন আমরা জাতির কাছে প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে পড়েছি? ইফজাল কি আমাদের ভাই নয়? সে আমাদের সাথে ওঠা বসা করেনাই? ইফজাল তো সেই ছেলে যে আমাদের এমসি কলেজের ইতিহাস ও ঐতিহ্যকে রক্ষার্থে প্রতিটি আন্দোলন সংগ্রামে সক্রিয় ছিলো। মেধা ও যোগ্যাতার দিক দিয়ে ও ছিলো প্রশংসনীয়। আজ কি সেই ইফজালের তাজা লাশকে আমরা হাসি মুখে মেনে নেবো? নাহ হাসি মুখে মেনে নেয়া এটা এমসি কলেজের ঐতিহ্য নয়।

আসুন প্রিয় ভাই / বোনারা ইফজাল হত্যার বিচার দাবিতে আমরা সোচ্চার হই, সে কোন দলের, কোন জনগোষ্ঠীর সেটা দেখার বিষয় নয়, বিষয় হলো ইফজাল আমাদের এমসি কলেজের ভাই, তার হত্যার বিচার নিশ্চিত না করে আমরা যেন ঘরে না ফিরি।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ ২৪ খবর