গোলাপগঞ্জে জেলা প্রশাসকের সাথে প্রতিনিধিদের মতবিনিময় অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: 4:11 PM, November 5, 2018

গোলাপগঞ্জে জেলা প্রশাসকের সাথে প্রতিনিধিদের মতবিনিময় অনুষ্ঠিত

গোলাপগঞ্জ সংবাদদাতা
গোলাপগঞ্জ উপজেলার উন্নয়ন কর্মকান্ডের অগ্রগতি বাস্তবায়ন বিষয়ক মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সোমবার দুপুর ২টায় উপজেলার সরকারি কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি, বীর মুক্তিযোদ্ধা, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, শিক প্রতিনিধি এবং প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকদের সাথে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মামুনুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম।

বক্তব্য রাখেন- উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাফিজ নজমুল ইসলাম, ভাইস চেয়ারম্যান নুমান উদ্দিন মুরাদ, গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আমিনুল ইসলাম রাবেল, গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা একেএম ফজলুল শিবলি, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার আলহাজ্ব শফিকুর রহমান, উপজেলা মাধ্যমিক শিা অফিসার অভিজিৎ কুমার পাল, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা খায়রুল আমিন, গোলাপগঞ্জ প্রেসকাব সভাপতি আব্দুল আহাদ, সেক্রেটারি মাহফুজ আহমদ চৌধুরী, উপজেলা সমাজসেবা অফিসার নুরুল হক।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন- গোলাপগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি ) সুমন্ত ব্যানার্জী, উপজেলা সমবায় অফিসার জামাল মিয়া, উপজেলা নির্বাচন অফিসার সাঈদুর রহমান, সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর গোলাপগঞ্জ জোনের ডিজিএম মামুনুর রশিদ, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা আব্দুল আহাদ, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা মাহবুবুল আলম, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা খাদিজা খাতুন, উপজেলা সহকারী শিা অফিসার লুৎফুর রহমান, দৈনিক মানবজমিন পত্রিকার গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি চেরাগ আলী, দৈনিক উত্তর পূর্বের গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি এনামুল হক এনাম, দৈনিক যায়যায় দিনের গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি আব্দুল্লাহ, গোলাপগঞ্জ অনলাইন প্রেসকাব সেক্রেটারি জাহিদ উদ্দিন, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মো: রুবেল আহমদ, গোলাপগঞ্জ জার্নালিস্ট ফোরামের কোষাধ্য আব্দুল আজিজ, প্রচার সম্পাদক ফাহাদ হোসাইন, সুলতান আবু নাসের প্রমুখ। সভায় উপজেলার বিভিন্ন সমস্যা, সম্ভাবনা ও উন্নয়ন কর্মকান্ড নিয়ে আলোচনা করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিলেটের জেলা প্রশাসক কাজী মোহাম্মদ এমদাদুল ইসলাম বলেছেন, শিক্ষাক্ষেত্রে দেশ যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে, সেভাবেই গোলাপগঞ্জের শিক্ষা কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে হবে। গোলাপগঞ্জের সোনালী অতীতকে ধরে রাখতে সবার সম্মিলিত প্রচেষ্ঠা অব্যহত থাকা দরকার। তিনি সিলেটের রূপ সৌন্দর্য্যরে চিত্র তুলে ধরে বলেন, সারা দেশের কাছে সিলেট প্রকৃতির কন্যা হিসেবে পরিচিত। পর্যটন ক্ষেত্রে সিলেটের রয়েছে অপার সম্ভাবনা। এ সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে আমরা ব্যবসা বাণিজ্যে আরো সফলতা অর্জন করতে পারি। বিভিন্ন বক্তার বক্তব্যের সূত্র ধরে তিনি বলেন, টিলা কাটা রোধে অবশ্যই কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে। যাতে কেউ অবৈধভাবে নদী থেকে বালু উত্তোলন করতে না পারে সে ক্ষেত্রেও স্থানীয় প্রশাসন কঠোর থাকা চাই। তিনি গোলাপগঞ্জের অনাবাদি জমিগুলো চাষা বাদের আওতায় আনার জন্য উপজেলা প্রশাসন ও কৃষি বিভাগকে উদ্দেশ্য করে বলেন, দেশ খাদ্যে অনেক সফলতা অর্জন করেছে। অনাবাদি জমিগুলো আবাদ করা হলে আমাদের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত হবে।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ ২৪ খবর