গোয়াইনঘাটে সবজি চাষে ভাগ্যের চাকা ঘুরছে প্রান্তিক চাষীদের

প্রকাশিত: 2:05 PM, November 8, 2018

গোয়াইনঘাটে সবজি চাষে ভাগ্যের চাকা ঘুরছে প্রান্তিক চাষীদের

গোয়াইনঘাট সংবাদদাতা
সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার হাজীপুর, ডালার পাড়, পানতুমাই, পিরের বাজার এলাকায় সবজি চাষে ভাগ্যের চাকা ঘুরছে প্রান্তিক চাষিদের। বন্যা কবলিত এলাকার মানুষের নানা ঝুকি থাকলেও শীতকালীন শাকসবজি চাষ ওদের প্রধান জীবিকা। এই এলাকায় ব্যাপক আকারে সবজির চাষ হয়েছে দিগন্ত জুড়ে নানা ধরনের সবজি আর সবজি।

স্থানীয় কৃষকরা জানান, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার পরামর্শ ছাড়াই উন্নত জাতের সবজি চাষ করে আশানুরূপ ফলন পেয়েছে। চলিত মৌসুমে এই উপজেলায় ৫’শ হেক্টর জমিতে সবজি চাষ হয়েছে। এই এলাকার কৃষকরা এবছর উন্নত জাতের ফুলকপি, বাধাকপি, সিম, টমেটু, শসা, ঝিঙ্গে, বেগুনসহ সাদা রঙ্গের লাউ ও কুমড়ার আবাদ করেছেন। কম পরিশ্রমে ও অল্প ব্যায়ে বেশি সফলতা পাওয়ায় এখানের কৃষকরা সবজি চাষে বেশ আগ্রহী হচ্ছেন। তবে, স্থানীয় কৃষকদের অভিযোগ, প্রান্তিক চাষীদের উজ্জল সম্ভাবনা থাকা সত্ত্বেও সবজি চাষীদের জন্য নেই কোন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা নেই কোন প্রকল্পও।

সবজি চাষী তসলিম উদ্দিন’র সাথে কথা বলে জানা যায়, এবছর সবজির ফলন ভাল হয়েছে। তিনি তার এক পোয়া জমিতে শসা চাষ ১২ হাজার টাকা খরচ করে সবজি চাষ করেছিলেন পরে তা ৭০ হাজার টাকা বিক্রি হয়। তাবে তার অভিযোগ স্থানীয় কৃষি অধিদপ্তর থেকে তিনি কোন সহযোগিতা পায়নি।

কৃষক আবুল কাশেম বলেন, গত বছর তিনি তার এক একর জমিতে সবজি চাষ করে সম্পূর্ন খরছ বাদে ৩ লাখ টাকা লাভ করেন। এ বছর ৫ বিঘা জমিতে সবজি চাষের ৫ লাখ আয় হবে।

গোয়াইনঘাট উপজেলা কৃষি সম্পাসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা আনিছুজ্জামান বলেন, গোয়াইনঘাট অঞ্চলের মাটির গুনগত মান খুবই ভাল, তাই সময় মত সবজির চাষ করতে পারলে ফলন ভাল হয়। সবজি চাষের উপর কোন প্রকল্প নেই। কৃষকরা শুধু পরমর্শটাই পায়।যদি সরকারের পক্ষ থেকে তাদের বীজ ও সার দেওয়া যেত, তাহলে অনেক কৃষক সবজি চাষ করে অনেক উপকৃত হত। উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় পশ্চিম জাফলং ইউনিয়নে কৃষির উন্নয়নের লক্ষমাত্রা ১’শ হেক্টর ছিল বর্তমানে তা ৫’শ হেক্টরে উন্নতি হয়েছে। আগামীতে দেড় হাজার হেক্টর জমিতে সবজি উৎপাদনের পরিকল্পনা আমরা হাতে নিয়েছি। কৃষকদের উৎপাদিত ফসল সংরক্ষণের জন্য আগামী বছর কোল্ডস্টোরেজ স্থাপন করার সিদ্ধান্তও নিয়েছি, যা অচীরেই বাস্তবায়িত হতে যাচ্ছে।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ ২৪ খবর