ছাতক পৌর নির্বাচন : কাউন্সিলর পদে  মিলন রানী দাসের প্রার্থীতা প্রকাশ

প্রকাশিত: ২:৩৬ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২, ২০২০

ছাতক পৌর নির্বাচন : কাউন্সিলর পদে  মিলন রানী দাসের প্রার্থীতা প্রকাশ

ছাতক সংবাদদাতা
সুনামগঞ্জের আসন্ন ছাতক পৌরসভা নির্বাচনে ৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে আবারও নির্বাচন করতে চান মিলন রানী দাস। তিনি পরপর ২ বার কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হলে তাকে পৌরসভার প্যানেল মেয়র-৩ পদে নির্বাচিত করে পৌর কর্তৃপক্ষ।

 

মিলন রানী দাস ২০১০ সালের ১৮ জানুয়ারী পৌর নির্বাচনে তার নিকটতম প্রতিদ্ব›িদ্ব লক্ষী রানী দাসের চেয়ে ১৭২৪ ভোট বেশী পেয়ে কাউন্সিলর নির্বাচিত হন। পরবর্তীতে জনকল্যাণে কাজ করে ভোটারদের আস্থা অর্জনের মাধ্যমে ২০১৫ সালের ৩০শে ডিসেম্বর পৌরসভা নির্বাচনে নিকটতম প্রতিদ্ব›িদ্ব কে বিপুল ভোটে হারিয়ে ২য় দফা মহিলা কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হন। বিগত ৫টি বছর তিনি নারী উন্নয়নে বলিষ্ট ভ‚মিকা রাখা ছাড়াও করোনা কালীন সময়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিরলস পরিশ্রম করে সরকারি ত্রাণ সামগ্রী বাড়ি বাড়ি পৌছে দিয়ে নিজ তহবিল হতে সাধ্যানুযায়ী সহায়তা করায় জনগণের আর্শীবাদ পুুষ্ট হয়ে উঠেছেন।

 

মিলন রানী দাস মনে করেন সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে জনগণকে সেবা দেয়া ইবাদত। মিলন রানীর কর্ম দক্ষতার ফলে তিনি উপজেলা পরিষদের মহিলা সদস্য নির্বাচিত হন। রাজনৈতিক আন্দোলন ছাড়া কোন দাবি আদায় হয় না। তাই স্থান করে নিয়েছেন সুনামগঞ্জ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সদস্য পদ। এছাড়া দীর্ঘ দিন ধরে তিনি নারী উন্নয়নে কাজ করায় নারীদের প্রতি তার আস্তা অবিচল থাকায় তিনি জায়গা করে নিয়েছেন উপজেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের সাধারণ সম্পাদক পদেও। ১৯৮১ সালে মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্ম নেয়া মিলন রানীর বয়স চল্লি¬শের কোঠায় ছুই ছুই করলেও জীবনে অর্জন করে ফেলেছেন তার অধিক। শহরের মন্ডলীভোগ মহল¬ার স্বামী পরিমল দাস ও ২ মেয়ে ১ ছেলে নিয়ে আত্মতুষ্টিতে বসবাস করলেও জনকল্যাণে কাজ করে লক্ষ্যে পৌছাতে মিলন রানীর আগ্রহ রয়েছে প্রবল।

 

আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে তাকে ভোট দিয়ে আবারও নির্বাচিত করতে তিনি প্রতিদিন পাড়া মহল¬ায় ভোটারদের কাছে ভোট চাইতে গেলে ভোটারা তাকে আশ্বস্থ করেছেন। মিলন রানী দাস ছাত্র জীবন থেকেই জনকল্যানে কাজ করার আগ্রহ থাকায় একাদশ শ্রেণীতেই লেখাপড়ার পাঠ শেষ করেন। তিনি একাধারে একজন সফল জনপ্রতিনিধি গৃহীনি ও নারী নেত্রী। এলাকায় যে কোন সমস্যায় সামাজিক আন্দোলনে তাকে সামনের সারিতে পাওয়া যায়। তিনি নারী উন্নয়ন ফোরামের মাধ্যমে এলাকার অবহেলিত বঞ্চিত ও নির্যাতিত স্বামী পরিত্যক্ত ও দুস্থ নারীদের সেলাই মেশিনসহ নানা উপকরণ দিয়ে সাবলম্বী করে গড়ে তোলেছেন। তিনি আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে নির্বাচিত হয়ে নারী উন্নয়নে আরো ভ‚মিকা রাখতে চান।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ ২৪ খবর