জিন্দাবাজার-চৌহাট্টা রাস্তার উন্নয়ন, বর্ণিল নগরে উন্নীত সিলেট

প্রকাশিত: ২:২৮ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২, ২০২০

জিন্দাবাজার-চৌহাট্টা রাস্তার উন্নয়ন, বর্ণিল নগরে উন্নীত সিলেট

বিশেষ প্রতিবেদক
সিলেট নগরের সৌন্দর্য্য বর্ধন ও জঞ্জালমুক্ত একটি পরিচ্ছন্ন নগর উপহার দেওয়াই বর্তমান সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর লক্ষ্য। এ লক্ষ্যকে সামনে রেখে অবিরাম উন্নয়ন কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। নগরজুড়ে ড্রেন নির্মাণ ও রাস্তা প্রশস্থ করণের মধ্যদিয়েই দিন অতিবাহিত হচ্ছে তার। নগরের প্রাণকেন্দ্র জিন্দাবাজার চৌহাট্টা রাস্তা প্রশস্ত করণ ও রাস্তার সৌন্দর্য্য বর্ধনের মধ্যদিয়ে তিনি ফুটিয়ে তুলছেন তার কাঙ্খিত ক্লিনসিটি ও গ্রীণসিটির কাজ। প্রশস্থ করণের পাশপাশি ডিভাইডার দিয়ে দীর্ঘদিনের ওয়ান রানওয়ের অবসান ও জনদুভের্খাগ লাগব করতে সক্ষম হযেছেন তিনি।

 

চৌহাট্টা-জিন্দাবাজার-বন্দরবাজার রাস্তাটিকে শুধুমাত্র তারের জঞ্জালমুক্তই নয়, জনগুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তা নিয়ে বিশেষ পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে সিলেট সিটি করপোরেশন সিসিক। পরিকল্পনার অংশ হিসেবে এবার ওই রাস্তায় কারুকাজ করা ‘টেস্টিং গ্রিল’ বসানো হচ্ছে।

 

মঙ্গলবার দেখা যায়, চৌহাট্টাস্থ সিলেট কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারের সামনে থেকে জিন্দাবাজারের দিকে রাস্তার মধ্যখানের ডিভাইডারে দৃষ্টিনন্দন গ্রিল বসানোর কাজ চলছে। কারুকাজ করা ও কালো-সোনালি রঙের এ গ্রিল আরও অনেক গুণ বাড়িয়ে দিয়েছে এ রাস্তার আকর্ষণ- এমটাই মন্তব্য করছেন পথচরীরা। এর আগে ব্যস্ততম এই রাস্তার মাঝখানে বিভাজন (ডিভাইডার) বসিয়ে সেখানে বাগান করার পরিকল্পনা নিয়েছিলো সিসিক। তবে তার বদলে এবার বসানো হচ্ছে কারুকাজ করা গ্রিল।

 

এ বিষয়ে সিসিকের প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, এটি পরীক্ষামূলকভাবে বসানো হচ্ছে। চৌহাট্টা থেকে বন্দরবাজার পর্যন্ত পুরো রাস্তায় বসানো হবে কি-না তা এখনই বলা যাচ্ছে না। কিছু জায়গা বসানোর পর পর্যবেক্ষণ করা হবে, এটি কতটা সৌন্দর্যবর্ধক। তার উপর নির্ভও করছে বাকিটা বসানোর কাজ।

 

তিনি জানানা, এই কারুকাজ করা গ্রিল বসানো ছাড়াও এ রাস্তার উভয়পাশের ফুটপাতে ফুলের টব বসিয়ে সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি করতে চায় সিটি করপোরেশন। আর এর মধ্যদিয়ে একটি সুন্দও ও বর্নিল নগরের রূপায়ন সম্ভব।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ ২৪ খবর