দক্ষিণ সুরমায় প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ : কোরআন হিফজ করেছেন যারা তারাই এ বিশ্বের সেরা মানব

প্রকাশিত: ৮:৩১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২, ২০২১

দক্ষিণ সুরমায় প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ : কোরআন হিফজ করেছেন যারা তারাই এ বিশ্বের সেরা মানব

নিজস্ব প্রতিবেদক
হুফফাজুল কোরআন ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ সিলেট জেলা সভাপতি হাফেজ ফখরুদ্দিন রস্তুম বলেছেন, আল্লাহ যেমন অনাদি অনন্ত তেমনি তার বাণীও অনাদি অনন্ত। আল্লাহর চিরন্ত বানী কোরআনকে যারা কণ্ঠস্থ ও হিফজ করতে পেরেছেন এ বিশ্বে তারাই সর্বশ্রেষ্ট মানব। হাদীস শরীফে এমনটা এরশাদ করেছেন আখেরী রাসুল (সা.)। পবিত্র কোরআনে আল্লাহর ঘোষণা- আমি কোরআন নাযিল করেছি এবং আমিই এর হেফাজতকারী। আল্লাহ প্রদত্ত সেই হেফাজতের দায়িত্ব যারা পালন করছেন, তারাই হচ্ছেন হুফফাজুল কোরআন। তাই ইসলামে ও সমাজ জীবনে হুফফাজুল কোরআনদের ক্বদর সবচেয়ে বেশি।

 

তিনি বলেন, আল্লাহর নাযিলকৃত সকল আসমানী কিতাব যুগেযুগে বিকৃত পরিবর্তি। আর তা করতে পারেনি একমাত্র কোরআনে হফেজ তথা হুফফাজুল কোরআনদের কারণেই। শনিবার (২জানুয়ারি) দক্ষিণ সুরমার খোজারখলা মারকাজস্থ আল-মাদরাসাতুল আরাবিয়া আদ-দ্বীনিয়া প্রঙ্গণে আয়োজিত হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। হুফফাজুল কোরআন ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ দক্ষিণ সুরমা খোজারখলা ও ফেঞ্চুগঞ্জ শাখা এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।

 

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এলজিডি কন্সট্রাকশন ওয়েল ফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন সিলেট এর জেনারেল সেক্রেটারী ও দৈনিক বিজয়ের কণ্ঠ’র অন্যতম উপদেষ্ঠা বিশিষ্ঠ ব্যবসায়ী শামীম আহমদ বলেন, কোরআন সরাসরি আল্লাহর বাণী, যা হাফেজে কোরআনদের মূখ থেকে বের হয়ে থাকে। আমরা তাদের মাধ্যমেই আল্লাহর চিরন্তন বানী শুনতে পারি। তাই হাফেজে কোরআনদের নিয়ে প্রতিযোগিতা ও তাদের সম্মাননা প্রদান আমাদের মহান দ্বীনি দায়িত্ব । এ দায়িত্ব ও কর্তব্যকে অবহেলা করার উপায় নেই। হুফফাজুল কোরআন ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ এ মহান দায়িত্ব আঞ্জাম দেওয়ায় আমরা তাদের জানাই আন্তরিক সাধুবাদ। মহান আল্লাহ তাদের এ দীনি খেদমতকে কবুল করুন। বক্তৃতাকালে তিনি হুফফাজুল কোরআন ফাউন্ডেশন-এর সার্বিক উৃন্নতি ও অগ্রগতি কামনা করেন।

 

হাফেজ মাওলানা এহসানুল হক-এর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন হাফেজ মাওলানা এমদাদুল হক। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন হাফেজ মাওলানা মাহফুজ আদনান ও হাফেজ মাওলানা লোকমান আহমদ প্রমূখ।

 

চার গ্রæপে প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান শেষে মোট ২৮ জন হাফেজে কেরআনের মধ্যে পুরষ্কার বিতরণ করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিসহ অন্যান্য মেহমানগণ।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ ২৪ খবর