সিলেটে জালালাবাদ ইউপির সংখ্যালঘু শিশু ধর্ষণ ধর্ষক এখলাস ও জসিমকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতারের দাবি

প্রকাশিত: 12:53 AM, October 4, 2020

সিলেটে জালালাবাদ ইউপির সংখ্যালঘু শিশু ধর্ষণ ধর্ষক এখলাস ও জসিমকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতারের দাবি

সিলেটের জালালাবাদ ইউনিয়নে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ১২ বছরের
সংখ্যালঘু শিশু ধর্ষণ মামলার আসামী এখলাস ও জসিম এবং তাদের সহযোগী আশিক
আলী, হারুন মিয়া, ইমদাদ আলী, জালাল মিয়া গংদের ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতার
করে আইনের আওতায় নিয়ে আসার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ
হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীস্টান ঐক্য পরিষদ ও বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ সিলেটের
নেতৃবৃন্দ।

শনিবার (৩ অক্টোবর) সকালে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে
হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীস্টান ঐক্য পরিষদ জালালাবাদ থানা শাখা ও পূজা উদযাপন
পরিষদ সিলেট সদর উপজেলা শাখার উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচী
পালনকালে এই দাবি জানিয়ে বক্তারা বলেন, গত ৬ সেপ্টেম্বর রাতে ১২ বছরের
সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের শিশু ধর্ষণের ঘটনা ঘটলেও মামলার এজাহার নামীয় দুই
আসামীসহ অপরাপর আসামীদের এখন পর্যন্ত গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। এতে
করে জনমনে নানা প্রশ্নের উদ্বেগ হচ্ছে।

নেতৃবৃন্দ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আগামী ৭ দিনের মধ্যে শিশু ধর্ষণ মামলার
আসামীদের গ্রেফতার করা না হলে ১০ অক্টোবর শনিবার সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ
কমিশনারের কার্যালয়ে বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীস্টান ঐক্য পরিষদ ও
বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ সিলেটের নেতৃবৃন্দ ঘেরাও কর্মসূচী পালন
করবেন।

সিলেট সদর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি নিলেন্দু ভূষণ দে অনুপের
সভাপতিত্বে ও সিলেট মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক
এডভোকেট দেবব্রত চৌধুরী লিটনের পরিচালনায় আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচী
চলাকালে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল
হক চৌধুরী, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক
এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি
এডভোকেট এমাদ উল্লাহ্ শহীদুল ইসলাম, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের
কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মৃত্যুঞ্জয় ধর ভোলা, কেন্দ্রীয়
সহযোগী সম্পাদক মলয় পুরকায়স্থ, কেন্দ্রীয় সদস্য অধ্যাপক রজত কান্তি
ভট্টাচার্য্য, শাহ খুররম ডিগ্রী কলেজের অধ্যাপক আমিনুল হক, পূজা উদযাপন
পরিষদ সিলেট জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা গোপিকা শ্যাম
পুরকায়স্থ চয়ন, মহানগর পূজা পরিষদের সভাপতি সুব্রত দেব, জেলা শাখার
সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট রঞ্জন ঘোষ, মহানগর শাখার যুগ্ম সম্পাদক চন্দন
দাশ, ঐক্য পরিষদ সিলেট মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ দেব,
খ্র্রীস্টান এসোসিয়েশনের সভাপতি ডিকন নিঝুম সাংমা, ট্রাইবেল ওয়েলফেয়ার
এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান দানেশ সাংমা, পূজা পরিষদ নেতা এডভোকেট বিপ্রদাস
ভট্টাচার্য্য, বিশ্বনাথ উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীস্টান ঐক্য পরিষদের
সভাপতি মানিক লাল দে, সদর উপজেলা পূজা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রাজু
গোয়ালা, ঐক্য পরিষদ কোতোয়ালী থানার সদস্য সচিব বিজয় ভূষণ ধর, এয়ারপোর্ট
থানা ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জিডি রুমু, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পূজা
পরিষদ সভাপতি অখিল বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ বিশ্বাস, জেলা সদস্য
জ্যোতিষ দত্ত, জালালাবাদ থানা ঐক্য পরিষদের সভাপতি ডা. জীবন কৃষ্ণ
গোস্বামী, সাধারণ সম্পাদক নিখিল বিশ্বাস, পূজা পরিষদ নেতা নিত্যকলি
আচার্য্য, নিরঞ্জন চন্দ্র চন্দ, উজ্জ্বল চন্দ, অপন দাস, রাজু কুমার পাল,
চন্দ্র শেখর দে, সবুজ বিশ্বাস, প্রণব কান্তি দেব প্রমুখ।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ ২৪ খবর