এক বছর ধরে শেষ হচ্ছে না নবীগঞ্জ -রুদ্রগ্রাম সড়কের সংস্কার কাজ

প্রকাশিত: 1:00 PM, December 9, 2019

এক বছর ধরে শেষ হচ্ছে না নবীগঞ্জ -রুদ্রগ্রাম সড়কের সংস্কার কাজ

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি : দীর্ঘ ১ বছর ধরে শেষ হচ্ছেনা নবীগঞ্জ উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ নবীগঞ্জ-রুদ্রগ্রাম সড়কের সংস্কার কাজ। এলজিইডির কার্যালয় থেকে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে বারবার তাগিদ দেওয়া হলেও তারা কোন কর্ণপাত করছে না। তারা নিজেদের মতো করে ধীর গতিতেই কাজ করছে। ফলে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে স্থানীয় বাসিন্দাদের। তবে সংস্কার কাজ কবে শেষ হবার কথা ছিল এমন প্রশ্নের কোন উত্তর মেলেনি নবীগঞ্জ উপজেলা এলজিইডি কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে।

এদিকে ১ বছরেও সংস্কার কাজ শেষ না হওয়ায় চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে স্থানীয়দের মাঝে। বিশেষ করে ধুলো-বালিতে নাকাল হচ্ছেন শিশু-কিশোরেরা। বাড়ছে নানা রোগ বালাই। বয়স্করাও শ্বাসকষ্টসহ নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। কবে নাগাদ সড়কের সংস্কার কাজ শেষ হবে এনিয়ে হতাশায় লোকজন।

জানা গেছে, প্রতিদিন নবীগঞ্জ-রুদ্রগ্রাম সড়ক দিয়ে উপজেলা পাহাড়ি অঞ্চল খ্যাত দিনারপুর পরগণার দেবপাড়া, গজনাইপুর, পানিউমদা ও বাউসা ইউনিয়নের প্রায় শতাধিক গ্রামের স্কুল-কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীসহ প্রতিদিন হাজার হাজার জনসাধারণ নবীগঞ্জ শহরে যাতায়াত করে থাকেন।

এমনকি স্ট্যান্ডের মাধ্যমে কয়েক শতাধিক সিএনজি অটোরিকশা চলাচলের পাশাপাশি, টমটম, অটো রিকশাসহ বিভিন্ন যানবাহন চলাচল করে।

সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালের শেষের দিকে নবীগঞ্জ-রুদ্রগ্রাম সড়কের প্রায় সাড়ে ১০ কিলোমিটার অংশ জুড়ে ৮ কোটি ৫১ লক্ষ টাকা ব্যায়ে সংস্কার কাজের টেন্ডার হয়। পরে কাজটি টেন্ডারে পায় হবিগঞ্জের ঠিকাদার মিজানুর রহমান শামীমের প্রতিষ্ঠান মের্সাস হাসান বিল্ডার্স। কার্যাদেশ পাওয়ার পর গত ২০১৮ সালের ৩০ নভেম্বর থেকে এ সড়কের সংস্কার কাজ শুরু করে ঠিকাদরি প্রতিষ্ঠান। শুরু থেকেই প্রতিষ্ঠানটি ধীরে ধীরে এ রাস্তার কাজ করে আসছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। চলতি বছরের গত ৩০ জুলাই কাজ সম্পন্ন করার সময়সীমাও শেষ হয়ে গেছে। কিন্তু অধিকাংশ কাজ এখনও বাকি রয়ে গেছে ।

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের ধীর গতির কারণে নবীগঞ্জ উপজেলা এলজিইডির কার্যালয় থেকে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে একাধিক বার চিঠি দিলেও চিঠির কোনো জবাব পায়নি এলজিইডি অফিস। অথচ ১বছর যাবৎ সড়কটি ধীরগতিতে সংস্কার কাজ করায় যাতায়েতে বিড়ম্ভনায় পরতে হয় সাধারণ যাত্রীদের।

ফারহানা আক্তার নামে এক কলেজে পড়ুয়া শিক্ষার্থী জানান, অনেকদিন ধরে রাস্তার কাজ চলছে, দুদিন কাজ হয় বাকি ১৫-২০দিন কাজ বন্ধ থাকে, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান তাদের যখন মন চায় তখনই কাজ করে বাকিটা সময় কাজ বন্ধ করে রাখে। এতে তিব্র ধুলাবালিতে চলাচল করতে অনেক কষ্ট হয়।

পূজা নামের আরেক শিক্ষার্থী জানান, প্রায় বছর খানেক ধরে রাস্তার কাজ চলছে, কিন্তু শেষ হচ্ছে না এর ফলে যাতায়াত করতে আমাদের খুব কষ্ট হয়। ধুলাবালিতে অনেক কষ্ট হচ্ছে।

ওই রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী দিনারপুর কলেজের অধ্যক্ষ তনুজ রায় বলেন, প্রতিদিন নবীগঞ্জ-থেকে কলেজে যাওয়ার পথে আইনগাঁও হয়ে যেতে হয়, রাস্তায় দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার কাজ হচ্ছে। কিন্তু কবে নাগাদ শেষ হবে, কাজের গতি দেখে তা বুঝা যাচ্ছে না। ধুলাবালির কারণে শিক্ষার্থীসহ সাধারণ মানুষের অনেক রোগবালাই দেখা দিচ্ছে।

এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ উপজেলা এলজিইডির প্রকৌশলী সাব্বীর আহমেদ বলেন, নবীগঞ্জ-রুদ্রগ্রাম সড়কটি একটি জনগুরুত্বপূর্ণ সড়ক সেজন্য আমরা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে চাপ দিচ্ছি যাতে দ্রুত কাজটি সম্পন্ন করে। আশা করি দ্রুত কাজ সম্পন্ন হবে। সংস্কার কাজ সম্পন্ন করার শেষ তারিখ কবে ছিল? এমন প্রশ্নের জবাবে এ প্রকৌশলী বলেন, তা তিনি জানেন না কারণ তিনি নতুন যোগদান করেছেন।

  •  

সর্বশেষ ২৪ খবর