কমলগঞ্জে কিশোরী ধর্ষণের অভিযোগে এক ব্যক্তি আটক

প্রকাশিত: 6:32 PM, February 9, 2020

কমলগঞ্জে কিশোরী ধর্ষণের অভিযোগে এক ব্যক্তি আটক

রমজান আলী, মৌলভীবাজার থেকে : মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে ১৭ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণ করার অভিযোগে উঠেছে। এ ঘটনায় শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) বিকালে স্থানীয়রা সালাম মিয়া (৩৬) নামে এক ব্যক্তিকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। আটক সালাম উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের উত্তরভাগ গ্রামের মৃত রইছ মিয়ার ছেলে।
ধর্ষিতা ওই কিশোরী বর্তমানে মৌলভীবাজার ২৫০ শষ্যা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ঘটনায় ধর্ষিতা কিশোরীর মা ছফিনা বেগম বাদী হয়ে কমলগঞ্জ থানায় একটি মামলা করেছেন।
ধর্ষিতা কিশোরীর মা ছফিনা বেগম বলেন, গত শুক্রবার (৭ ফেব্রুয়ারি) আমি ছোট মেয়ে ও ছেলে জাফর মিয়াকে বাড়ীতে রেখে বড় মেয়ের স্বামীর বাড়িতে যাই। শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) ভোর রাতে আমার মেয়ে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে ঘড়ের বাহিরে বের হলে সালাম আমার মেয়েকে তার মুখ ধরে জোর পূর্বক একটি সিএনজি অটোরিক্সা করে উত্তরভাগ গ্রামের প্রবাসী কফিল মিয়ার ভাড়াটিয়া বাসায় নিয়া যায়। পরবর্তীতে আমার মেয়ের ইচ্ছার বিরুদ্ধে সালাম জোর পূর্বক একাধিকবার ধর্ষন করে। তিনি আরও জানান, শনিবার সকালে তিনি বাড়িতে এসে মেয়েকে না পেয়ে আত্মীয়স্বজনদের অবগত করে খোঁজাখুজি করতে থাকেন। খোঁজাখুজির একপর্যায়ে ওই দিন বিকাল ৪ ঘটিকার সময় উত্তরভাগ গ্রামের প্রবাসী কফিল মিয়ার ভাড়াটিয়া বাসার দরজার তালা ভেংগে তার মেয়ের হাত ও মুখ কাপড় দিয়ে বাধাঁ অবস্থায় উদ্ধার করেন। তখন ওই ঘড়ে থাকা সালাম পালানোর চেষ্টা করলে স্থানীয়রা তাকে আটক করে থানায় সোপর্দ করেন।
ছফিনা বেগম বলেন, “উপরোক্ত সাক্ষীগন সহ আশপাশের লোকজন বিবাদীকে ধস্তাধস্তি করে আটক করেন। বর্তমানে আমার মেয়ে মৌলভীবাজার ২৫০ শষ্যা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।” কমলগঞ্জ থানার ওসি আরিফুর রহমান ধর্ষনের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় ধর্ষিতা কিশোরীর মা বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। আটক সালামকে রোববার দুপুরে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে।

  •  

সর্বশেষ ২৪ খবর