‘কল্পনায়’ বিপিএল খেলছেন সাইফুদ্দিন!

প্রকাশিত: 2:07 AM, December 19, 2019

‘কল্পনায়’ বিপিএল খেলছেন সাইফুদ্দিন!

ক্রীড়া ডেস্ক : ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে পিঠের ব্যথার কারণে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামতে পারেননি মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন। ২৩ বছর বয়সী এ তরুণ পেসারকে নিয়ে তখন সংবাদ ছড়িয়ে পড়ে ইনজুরি নয়, ভয়েই তিনি খেলেননি। শুরু হয় আলোচনা-সমালোচনা। ইনজুরি নাকি ভয় কোনটা সত্যি? শেষ পর্যন্ত জানা যায় ইনজুরির কারণেই তিনি খেলেননি ম্যাচটিতে। যে ইনজুরিতে বর্তমানে দলের বাইরে সাইফ। জাতীয় দল তো পরের কথা খেলতে পারছেন না ঘরোয়া ক্রিকেট লীগ বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ টি-টোয়েন্টিতেও (বিপিএল)। তার সতীর্থরা মাঠে ব্যাট-বল হাতে। কিন্তু তিনি একা একা সময় কাটাচ্ছেন মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামের একাডেমির ভবনে।
.
চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী করে যাচ্ছেন রিহ্যাব। শারীরিকভাবে নিজেকে প্রস্তুত করছেন, প্রস্তুত করছেন মানসিকভাবেও। বিপিএল না খেলতে পারলেও জানালেন ডুবে আছেন মাঠে। কল্পনাতেই নিজের সঙ্গে খেলে প্রস্তুত করছেন নিজেকে।  সাইফুদ্দিন বলেন, ‘আমি মনে করি ক্রিকেট মানসিক খেলা। হয়তোবা আমি বিপিএলে ম্যাচ খেলছি না, কিন্তু প্রত্যাকটা ম্যাচ আমি মাঠে গিয়ে না পারলেও ইউটিউবে লাইভ দেখি। অন্য কেউ যখন বল করে মনে মনে ভাবি আমিই করছি। আমি চিন্তা করি ঐ পরিস্থিতিতে থাকলে আমি কীভাবে বল করতাম। নিজের সঙ্গে সঙ্গেই নিজে খেলি আরকি। যখন একটা ব্যাটসম্যান ব্যাটিং করে মনে করি আমি করছি। আমি মাঠে নাই কিন্তু মনটা মাঠেই পড়ে আছে। শুধু বিপিএল না প্রতিটি ম্যাচই আমি দেখি। মনে মনে খেলতে আমি অনেক আনন্দ পাই।’
.
বিপিএলে না খেলার কষ্ট থেকে শিক্ষা নিচ্ছেন তরুণ পেস অলরাউন্ডার সাইফুদ্দিন। তিনি বলেন, ‘কষ্ট লাগছে। তবে খুব বেশি যে খারাপ লাগছে তা কিন্তু নয়। আসলে আমরা পেস বোলাররা ইনজুরিতে থাকবো এটাই বাস্তবতা। আবার বড় কিছু মিস করলেও আশায় থাকি হয়তো আরো বড় সুযোগ আসবে সামনে। এভাবেই নিজেকে মানসিকভাবে প্রস্তুত করে রেখেছি। গত ১ বছর ধরে এই ইনজুরিতে ভুগছি। আমার মনে হয় যে এটাই বড় সুযোগ একেবারে সুস্থ হয়ে মাঠে ফেরার। আশায় আছি, যেন একেবারে ভালোই হয়ে মাঠে নামতে পারি।’ বিশ্বকাপের যে ইনজুরির কারণে মোহাম্মদ সাইফুদ্দিনকে সমালোচনার মুখোমুখি হতে হয়েছে, সেই কারণেই তিনি এখন মাঠের বাইরে। এ নিয়ে তিনি বলেন, ‘এসব (সমালোচনা) আমাদের হাতে নেই। তাই ভাবতেও চাই না। ভালো-মন্দ দুটি দিকই থাকবে। সব মেনেই এগিয়ে যেতে হবে। আমিও সব মেনে নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি। কারণ মাঠের খেলাটা আমাকেই খেলতে হবে। আমি ভালো খেললে হয়তো জাতীয় দলে সুযোগ পাবো, খেলতে পারবো। আর ভালো না খেললে থাকবো না এটাই স্বাভাবিক। এটি মাথায় নিয়েই নিজেকে যতটা ফিট রাখা যায় সেভাবে কাজগুলো করে যাচ্ছি।’
.
এছাড়াও ইনজুরির বর্তমান অবস্থা নিয়ে সাইফুদ্দিন বলেন, ‘আল-হামদুলিল্লাহ, গেল দুই সপ্তাহ হলো বেশ উন্নতি হয়েছে আমার অবস্থার। আগে ঘুম থেকে উঠলেই অস্বস্তি বোধ করতাম, ব্যথা হত। কিন্তু এখন আর তেমন একটা হচ্ছে না। হ্যাঁ, কিছুদিন পর একটা স্ক্যান করাবো। তখন জানা যাবে কি অবস্থায় আছি। এরপরই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে আসলে আমি কি অপারেশনে যাবো নাকি এভাবেই মাঠে ফিরতে পারবো।’

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ ২৪ খবর