গণতন্ত্রী পার্টির নিয়মিত সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: 1:44 PM, December 5, 2019

গণতন্ত্রী পার্টির নিয়মিত সভা অনুষ্ঠিত

ডেস্ক প্রতিবেদন :
গণতন্ত্রী পার্টি সিলেট জেলা কমিটির নিয়মিত সভা গত (২ ডিসেম্বর) সোমবার সন্ধ্যায় নগরির তালতলাস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। জেলা সভাপতি মোঃ আরিফ মিয়ার সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক জুনেদুর রহমান চৌধুরী’র পরিচালনায় এতে প্রধান অতিথি ছিলেন পার্টির কেন্দ্রীয় সভাপতি ব্যারিস্টার মোহাম্মদ আরশ আলী।
সভার এক প্রস্তাবে পেয়াজ, চাউল, ভোজ্যতেল, শাক-সব্জিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির আকাশচুম্বি মূল্যবৃদ্ধির কারণে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। প্রস্তাবে বলা হয়, নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির অব্যাহত মুল্যবৃদ্ধির কারণে সাধারণ জনগণের নাভিশ্বাস চরমে উঠছে, নি¤œ মধ্যবিত্ত, নি¤œবিত্ত এবং বিত্তহীন মানুষ দারুণ অর্থকষ্টে দিনযাপন করছে। প্রস্তাবে বাণিজ্যমন্ত্রী ও খাদ্যমন্ত্রীকে এ ব্যাপারে আরো সচেতন হওয়ার দাবি জানিয়ে বলা হয়, ব্যবসায়ি নামধারী কয়েকটি উচ্চপর্যায়ের সিন্ডিকেট বর্তমান সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে এই অপতৎপরতা শুরু করেছে। গণতন্ত্রী পার্টির দৃষ্টিতে যা একটি ‘অশনিসংকেত’ বটে।
সভার অপর এক প্রস্তাবে বলা হয়, বর্তমান মৌসুমের ধান কাটা ইতোমধ্যেই শুরু হয়েছে। কৃষকরা আনন্দচিত্তে ঘরে ধান তুলছে। কিন্তু দালাল ও লুটেরাচক্র কারসাজি করে কম মূল্যে ধান কিনে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টির অপচেষ্টায় লিপ্ত। তাই এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণের লক্ষ্যে খাদ্যমন্ত্রণালয়ের চাহিদা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় খাদ্য মজুদের লক্ষ্যে সকল ধান সরাসরি কৃষকদের নিকট থেকে ক্রয় করার জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানানো হয়।
সভার আরো এক প্রস্তাবে সিলেট-ঢাকা ও সিলেট-চট্টগ্রাম এবং সিলেট-ছাতক রেললাইন সংস্কারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণে রেল মন্ত্রণালয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলা হয়, উপরোক্ত লাইন সমুহ যথাযথভাবে সুরক্ষিত না থাকায় ঘন ঘন রেল দূর্ঘটনা ঘটে জান-মালের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে।
সভার অপর প্রস্তাবে গৃহস্থালী কার্যে অবিলম্বে গ্যাস সংযোগ প্রদানের দাবি জানিয়ে বলা হয়, গৃহস্থালী কাজে গ্যাস সংযোগ বন্ধ থাকায় বৃহত্তর সিলেটের বনজ সম্পদ উজাড় হতে চলেছে। এতে পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হওয়ার উপক্রম হচ্ছে। তাই বৃহত্তর সিলেটবাসীর গৃহস্থালী কাজে গ্যাস সংযোগ প্রদানের নির্দেশনা দিতে সরকারের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়।
সভায় বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলা হয়, এমনিতে দ্রব্যমূল্যের উর্ধগতির কারণে জনগণের ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা। তার উপর বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি জনগণের উপর মড়ার উপর খাড়ার ঘা-এর মতো। তাই আপাতত বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি না করতে জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের প্রতি জোর দাবি জানানো হয়।
সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন গণতন্ত্রী পার্টি অন্যতম নেতা প্রকৌশলি আইয়ুব আলী, বিপুল বিহারী দে, মাছুম আহমদ, গোলজার আহমদ, সাংবাদিক চঞ্চল মাহমুদ ফুলর, আজিজুর রহমান খোকন, নাজিম উদ্দিন আহমদ, ডা. সুভাষ কান্তি দাস, এ্যাডভোকেট আবু তালেব মিয়া, শ্যামল কপালী, বাবুল আহমদ চৌধুরী, শংকর ঘোষ প্রমুখ।

  •  

সর্বশেষ ২৪ খবর