জনগণ চায় না, যুদ্ধাপরাধীরা আবার মতায় আসুক : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: 4:15 PM, November 6, 2018

জনগণ চায় না, যুদ্ধাপরাধীরা আবার মতায় আসুক : প্রধানমন্ত্রী

ডেস্ক প্রতিবেদন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘বাংলাদেশের জনগণ চায় না, স্বাধীনতাবিরোধী ও যুদ্ধাপরাধীরা আবার মতায় আসুক। সেটা আমরাও চাই না এবং আমি বিশ্বাস করি, যারা স্বাধীনতার চেতনায় বিশ্বাস করে, তারাও সেটা চাইবে না।’

তিনি বলেন, ‘এখন সামনে নির্বাচন। দেশের যে উন্নয়নটা করতে পেরেছি, যদি গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত থাকে, তাহলে এই উন্নয়ন অব্যাহত থাকবে। তাই আমি জনগণের কাছে ভোট চাই, যাতে নির্বাচিত হয়ে এসে এসব ধরে রাখতে পারি।’

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাম গণতান্ত্রিক জোটের সঙ্গে সংলাপের সূচনা বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সংলাপের শুরুতে সবাইকে স্বাগত জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘স্বাধীনতার মাত্র সাড়ে ৩ বছরের মাথায় বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পরবর্তী অবস্থা থেকে বাংলাদেশকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ফিরিয়ে আনাটাই ছিল আমাদের ল্য। সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল, দেশের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নতি করা; সেটা আমরা করতে পেরেছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যেই এদেশে মতায় আসে, সেই বসে যেতে চায়, থেকে যেতে চায়। কিন্তু আমি চাই, একটি সুষ্ঠু নির্বাচনে যারা বিজয়ী হবে, তারাই সরকারে আসবে। আর সেজন্য সব ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি।’

তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়া সরকারে এসে আমার বিরুদ্ধে ১২টা মামলা দিয়েছিল। এক-এগারোর তত্ত্বাবধায়ক সরকার এসে আরও ৫-৬টি মামলা দেয়। ওই সরকার আমাকে নির্বাচন না করার প্রস্তাব দিয়েছিল। কিন্তু আমি একটি কথা জোর দিয়ে বলেছি, নির্বাচন হবে; জনগণ যাকে চাইবে সেই মতায় আসবে। আমি এখনও সেই অবস্থানেই আছি।’

সরকারপ্রধান বলেন, ‘২০০১ সালে আমরা যেখানে বাংলাদেশ রেখে এসেছিলাম, সেখান থেকে বাংলাদেশ আবার পিছিয়ে যায়। ২০০৮ সালে যখন সরকার গঠন করি, তখন বিশ্বমন্দা ছিল। এর মধ্যদিয়ে আমরা এগিয়ে যাই। ২০১৩ সাল থেকেই নির্বাচন ঠেকানোর নামে অগ্নিসংযোগসহ নানা নাশকতা করা শুরু করে। সেটাও সামলে নিয়েছি।’

উপস্থিত বাম নেতাদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘গত ১০ বছরে কোনোদিন দেখা হয়নি। তাই সে দেখাটা হোক, এটা আমি চাই।’
বাম গণতান্ত্রিক জোটের ৮ দলের ১৬ প্রতিনিধি সংলাপে অংশ নেন। সংলাপে আওয়ামী লীগসহ ১৪ দলের নেতারা উপস্থিত আছেন।

শেখ হাসিনাকে ‘মতায় আনতে চান’ ইসলামী নেতারা :
এদিকে, আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের সঙ্গে সংলাপে যোগ দিয়ে ইসলামী দলগুলোর নেতারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবারও মতায় আনতে তাদের পূর্ণ সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।

মঙ্গলবার দুপুরে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আটটি ইসলামী দলের সঙ্গে প্রায় দুই ঘণ্টাব্যাপী সংলাপ শেষে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

একাদশ জাতীয় নির্বাচন নিয়ে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা ও তার জোটের নেতাদের সঙ্গে সংলাপে আটটি ইসলামী দলের প্রায় ৫২ জন নেতা অংশগ্রহণ করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তারা জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যাতে আগামীতে মতায় ফিরে আসতে পারেন, সে জন্য তাদের পূর্ণ সহযোগিতা থাকবে। ইসলামী দলগুলোর প্রত্যেক নেতা বলেছেন, তারা সংবিধান অনুসারে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার জন্য তাদের সমর্থন বৃদ্ধি করবে এবং তারা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে।’

আটটি ইসলামী দলের মধ্যে রয়েছে- ইসলামী ঐক্যজোট, বাংলাদেশ মুসলিম লীগ, বাংলাদেশ জালালি পার্টি, আশেকিন আওলিয়া ঐক্য পরিষদ বাংলাদেশ, জাকের পার্টি, বাংলাদেশ জাতীয় ইসলামী জোট, বাংলাদেশ সম্মিলিত ইসলামী জোট এবং ইসলামিক গণতান্ত্রিক জোট।

বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার জোটের নেতাদের সঙ্গে আবারও আলোচনায় বসবেন ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ ২৪ খবর