প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রীর কবিতা

প্রকাশিত: 10:59 PM, December 30, 2019

প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রীর কবিতা

ডেস্ক প্রতিবেদন : প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সোমবারের মন্ত্রিসভার বৈঠকে সুনামগঞ্জে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন হয়েছে।

এতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকেই একটি কবিতা লিখেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী ও সুনামগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য এমএ মান্নান।

এই কবিতাটিই তার জীবনের প্রথম স্বরচিত কবিতা বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী।

কবিতায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর প্রতি সুগভীর ভালোবাসা ও বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

তার লেখা কবিতাটি কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে।

পরিকল্পনামন্ত্রীর লেখা কবিতাটি হুবহু তুলে ধরা হল-

‘ডিসেম্বরের তিরিশ দুই হাজার উনিশ

হাওর বাংলার জন্য এল বড় শুভাশীষ

বঙ্গকন্যা শেখ হাসিনা খুলিল দুয়ার

এল মোদের বিশ্ববিদ্যালয়, খুশির জোয়ার।

বয়ে গেল হাওর থেকে হাওরে অপার

কে রুখবে আমাদের আনন্দ এবার।

বঙ্গবন্ধু দিয়ে গেল স্বাধীনতা স্বভূমে

বঙ্গকন্যা আনে এবার সম্মান অসীমে।

ধন্য ধন্য শেখ হাসিনা তোমায় সালাম

হাওরবাসীর পক্ষে আমি দিয়ে গেলাম।’

১০ লাইনের কবিতায় কোনো শিরোনাম না দিলেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উৎসর্গ করে হাওর-ভাটির পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানিয়েছেন তিনি।

হাওরে বিশেষায়িত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদনের প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার প্রতি আমার হাওরবাসীর পক্ষে এই খুশিতে আমি কেবিনেট সভায় বসেই একটি কবিতা লিখেছি। আমি কবিতার মানুষ নই। কিন্তু আনন্দে আমার জীবনের প্রথম কবিতাটি শেষ বয়সে এসে কেবিনেট সভায় বসে লিখলাম।

তিনি বলেন, আমাদের স্বপ্নের বাস্তবায়ন ঘটিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। হাওরবাসীর পক্ষ থেকেই আমি কবিতায় তাকে শ্রদ্ধা, ভালোবাসা ও শুভেচ্ছা জানিয়েছি।

এ দিকে সুনামগঞ্জে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদনে অসামান্য ভূমিকা রাখার জন্য হওয়ায় হাওরপাড়ের সন্তান পরিকল্পনামন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছেন সুনামগঞ্জের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। তার জন্মস্থান জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জের মানুষের মাঝে বইছে আনন্দের বন্যা।

  •  

সর্বশেষ ২৪ খবর