বন্দী নেতাকর্মীদের দেখতে কারাগারে ইনাম চৌধুরী

প্রকাশিত: ১:৪২ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১, ২০১৮

বন্দী নেতাকর্মীদের দেখতে কারাগারে ইনাম চৌধুরী

ডেস্ক প্রতিবেদন
সিলেটে কারান্তরীণ নেতাকর্মীদের খোঁজ নিলেন সিলেট-১ আসনের বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ইনাম আহমদ চৌধুরী।

শনিবার দুপুরে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে গিয়ে তিনি বন্দী নেতাকর্মীদের সাথে দেখা করেন।

কারান্তরীণ সিলেট জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আলী আহমদ, সদর উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এবং সাবেক উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান আবুল কাসেম ও জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সুমন আহমেদসহ সম্প্রতি শতাধিক নেতাকর্মী রজনৈতিক মামলায় কারাবন্দী রয়েছেন।

ইনাম আহমদ চৌধুরী এসময় নেতাকর্মীদের খোঁজ নেন এবং জেল কোড অনুযায়ী বন্দী নেতাকর্মীদের কোনভাবে যাতে মানবাধীকার লংঘন না হয় সে দিকে খেয়াল রাখার জন্য কারা কর্তৃপক্ষকে জানান। দলের একজন জাতীয় নেতাকে কাছে পেয়ে আবেগআপ্লুত হয়ে পড়েন অনেক নেতাকর্মী।

ইনাম চৌধুরী দীর্ঘ সময় সেখানে অবস্থান করেন। এসময় তিনি বলেন, বিএনপি গণতান্ত্রিক দল। যখনই গণতন্ত্রের উপর আঘাত এসেছে, জিয়ার সৈনিকরা তখনই রুখে দাঁড়িয়েছে। বর্তমান স্বৈরাচারী সরকারও বিএনপি নেতাকর্মীদের খুন গুম করে, জেলে রেখে দেশে বাকশাল কায়েম করতে চায়। ইনাম বলেন পুরো বাংলাদেশই আজ কারাগারে পরিণত হয়েছে।

যারা অন্যায়ের প্রতিবাদ করছে তাদের ওপর শাস্তির খড়গ নামছে। সারা বাংলাদেশের ল ল নেতাকর্মী নির্যাতিত হচ্ছেন। বিএনপির নেতাকর্মীদের গুম করা হচ্ছে। নদীর জলে ভেসে উঠছে লাশ। আওয়ামী লীগকে হুশিায়ারী দিয়ে তিনি বলেন, জুলুম নির্যাতন করে বিএনপি নেতাকর্মীদের রুখা যাবে না। যতদিন প্রাণ আছে এ দেশের মানুষের মুক্তির জন্য, গণতন্ত্র ফেরানোর জন্য জিয়ার সৈনিকেরা সংগ্রাম করে যাবে।

ইনাম আহমদ আরো বলেন, আওয়ামী লীগ যখন নির্বাচনী উৎসব করছে, তখন বিএনপির নেতাকর্মীরা ঘরে থাকতে পারছে না। এমন পরিস্থিতি দ্রুত বন্ধ হওয়া উচিত। অবাধ সুষ্ঠু নিরপে নির্বাচন অনুষ্ঠানে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড না হলে ২০১৪ সালের পাতানো নির্বাচনের মতোই এ নির্বাচন হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি। আর এমনটি হলে সকল উদ্ভূত পরিস্থিতির জন্য সরকারকেই খেসারত দিতে হবে জানিয়ে বর্তমান সরকাপরের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, একটি সুন্দর নির্বাচনের জন্য সরকারকে স্বৈরাচারী মনোভাব ত্যাগ করা উচিত। না হয় ইতিহাস তাদের ক্ষমা করবে না।

এসময় তাঁর সাথে উপস্থিত ছিলেন, মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি আব্দুল ফাত্তাহ বকসি, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান আহমদ চৌধুরী, মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মিফতা সিদ্দিকী, জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাদিকুর রহমান সাদিক জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক মঈন উদ্দিস সুহেল, ইশতিয়াক সিদ্দিকী, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ সভাপতি মাহবুবুল হক চৌধুরী, জেলা ব্নিপির সদস্য সেলিম আহমদ, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহ সভাপতি লিটন আহমদ, যুবদল নেতা মিসবাহ উদ্দিন আঙ্গুর, জামাল আহমেদ খান, কামাল উদ্দিন, সাবেক ছাত্রদল নেত সুমেল আহমদ চৌধুরী, আফজল হোসেন, এনাম আহমেদ প্রমুখ।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ ২৪ খবর