মৌলভীবাজারে দক্ষ জনশক্তি গড়তে অগ্রণী ভূমিকায় কারিগরি প্রশিক্ষণ

প্রকাশিত: 4:39 PM, October 30, 2018

মৌলভীবাজারে দক্ষ জনশক্তি গড়তে অগ্রণী ভূমিকায় কারিগরি প্রশিক্ষণ

দুরুদ আহমেদ, মৌলভীবাজার থেকে
মৌলভীবাজারে কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র প্রযুক্তি নির্ভর ও বিদেশগামী দক্ষ জনশক্তি উন্নয়নে অগ্রনী ভূমিকা পালন করছে। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রাণালয়ের অধীন জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো কর্তৃক পরিচালিত মৌলভীবাজার কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের অধ্যক্ষ শেখ মোহাম্মদ নাহিদ নিয়াজ ও অফিসের অন্যান্য কর্মকর্তারা নিজ উদ্যাগেই প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ভেতরে রোপণ করেছেন বিভিন্ন প্রজাতির ফলজ গাছ, আম, জাম, কাঁঠাল, কলা, লিচু, পেপে, পেয়ারা, আপেল, কমলা, মালটা, আতা, আনার, সবেদা, ড্রাগন, অরবরই বিলম্ব, জামরুল, আমলকি, বেল, শরীফা লুকলুকি, ডেওয়া, কফি, কাউ, লেবু, বরই, করমচা, কামরাঙ্গা, চালতা, সাতকরা, ট্যাং, কদবেল, সুইট লেমন, ডালিম, লটকন, জলপাই, এলাচ (মসলা), তেজপাতা (মসলা), গোলাপ জাম ও বিলাতি গাবসহ বিভিন্ন প্রজাতির ফলজ গাছ ও বনজ গাছের চারা। কেন্দ্রটি ২০১৬ সালের অক্টোবর মাসে ১টি ব্যাচ দিয়ে শুরু। বর্তমানে রয়েছে ৬টি ব্যাচ। বিদেশে গমন ইচ্ছুক প্রথম ব্যাচের ২১জন মহিলা প্রশিক্ষার্থীদের মধ্যে ৯ জন প্রশিক্ষার্থী বিদেশে রয়েছেন। হাউজ বিল্ডিং কোর্সের প্রথম ব্যাচের ২৭জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ২১ জন সার্টিফিকেট প্রাপ্ত হন এর মধ্যে ৯জন বিদেশগামী দেশের বাহিরে দক্ষ জনশক্তি হয়ে উন্নয়নে অগ্রনী ভূমিকা পালন করছেন। চালু রয়েছে ৬ মাস থেকে ২মাস মেয়াদী বিভিন্ন কোর্স। প্রশিণ ও সনদ নিয়ে কেউ বেকার থাকেন না। এ সনদটি একজন কর্মীকে আরও আত্মবিশ্বাসী করে গড়ে তুলবে। সনদধারীরা এ সনদ দেখিয়ে দেশ-বিদেশে খুব সহজেই ভালো চাকরি করতে পারেন। নিজে উদ্যোগী হয়েও ব্যবসা করা সম্ভব। দেশের একটি উল্লেখযোগ্য জনগোষ্ঠী নানা কারণে উচ্চশিার সুযোগ পায় না। প্রশিণ নিয়ে যে কেউ বাংলাদেশে যেমন কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করতে পারেন, তেমনি বিদেশেও। প্রয়োজনীয় প্রশিণ নিয়ে বিদেশে গেলে কয়েক গুণ বেশি আয়ের সুযোগ তৈরি হয়। এদের মধ্যে যারা কাজ শিখে বিদেশে যেতে চান তাঁদের জন্যই বিভিন্ন ধরনের কারিগরি শিার আয়োজন করা হয়।
বিদেশে কাজের সুযোগ সৃষ্টি হতে পারে বা বৈদেশিক বাজারে যেসব বিষয়ের চাহিদা রয়েছে কারিগরি প্রশিণ কেন্দ্রে সেসব বিষয়েই প্রশিণ দেওয়া হয়। কম্পিউটার অফিস প্যাকেজ, গ্রাফিক্র ডিজাইন, গার্মেন্টস, জেনারেল ইলেকট্রিক্যাল ওয়ার্কস, জেনারেল ইলেকট্রনিক্র, সিভিল কন্সট্রাকশন, মেকানিক্যাল ও ড্রাইভিং, বিদেশ গমনেচ্ছুদের ৩দিন মেয়াদী প্রাক বর্হিগমন প্রশিক্ষণ এবং মহিলাদের জন্য হাউজ কিপিং কোর্সসহ জনগুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিণ প্রদান করা হয়।
এছাড়া প্রশিণার্থী যে দেশে যেতে চাইছেন, সে দেশের ভাষা শিখিয়ে দেওয়া হয়। বর্তমানে ৪মাস মেয়াদী জাপানের ভাষা শিক্ষা গ্রহণ করে সরকারিভাবে জাপান যাওয়ার সূবর্ণ সুয়োগ। ২মাস থেকে শুরু করে ছয় মাস মেয়াদি প্রশিণ কোর্স এর মধ্যে একটি স্বনির্ভর ও অপরটি নিয়মিত কোর্স। স্বনির্ভর ও অন্যটি নিয়মিত। নিয়মিত কোর্সগুলো সাধারণত দিনে পরিচালিত হয়।
স্বনির্ভর (নিজস্ব অর্থায়নে) কোর্সগুলোর কাস শুরু হয় বিকেলে। এ কোর্সের ফি নিয়মিত কোর্সের তুলনায় একটু বেশি। প্রশিণ কেন্দ্র ও ট্রেড-ভেদে ফি ভিন্ন হয়ে থাকে এবং তা ভর্তির বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়ে থাকে। বিদেশে যাওয়ার আগে প্রতারণা এড়াতে সরকার অনুমোদিত বৈধ এজেন্সির মাধ্যমে বিদেশে যাওয়া উচিত। তাই জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিণ ব্যুরো (বিএমইটি) ডাটাবেইসে বিদেশে চাকরিপ্রার্থীদের নাম নিবন্ধন করতে হয়।

  •  

সর্বশেষ ২৪ খবর