সাংগঠনিক সম্পাদকের দৌড়ে কামরান-ইমন

প্রকাশিত: 12:57 PM, December 19, 2019

সাংগঠনিক সম্পাদকের দৌড়ে কামরান-ইমন

মিসবাহ জামিল : কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হবার দৌড়ে সিলেটের ২ প্রার্থীর নাম এখন আলোচনায়। এই দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা ও দলের সিলেট মহানগর সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। এই পদে সিলেটে আরো এক নেতার নাম বেশ জোড়েসোরে আলোচিত হচ্ছে। তিনি হলেন দলের মহানগর শাখার সদ্য বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ। এই দুই নামের পাশে সুনামগঞ্জ থেকে যুক্ত হয়েছে আরো একটি নাম। তিনি হলেন, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিষ্টার এনামুল কবির ইমন। সাংগঠনিক সম্পাদক হবার দৌড়ে বদর উদ্দিন আহমদ কামরান এবং ব্যাারিষ্টার ইমনের নাম এই মুহুর্তে বেশি আলোচিত হচ্ছে। অধিকাংশ নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন-শেষ দৌড়ে কামরান এবং ইমনের মধ্যে যে কোনো একজন আসতে পারেন গুরুত্বপূর্ণ এই পদে।
.
এদিকে, সিলেট জেলা ও মহানগর সম্মেলনে পদবী থেকে বাদ পড়েছেন সিলেটের তিন ডাক সাইটে নেতা। তবে, সম্মেলনে এই তিন নাম বাদ পড়ে গেলেও বড় কিছু পাওয়ার আশা করছেন তাদের অনুসারীরা। বর্তমানে জাতীয় সম্মেলনের দিকে তাকিয়ে আছেন এই তিনজন। সম্মেলন শেষে দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাতও করেছেন তারা। বাদ পড়া এই তিন নেতা হলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সদ্য সাবেক সভাপতি ও সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, জেলা আওয়ামী লীগের সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী ও মহানগরের সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ।
.
কেন্দ্রীয় সদস্য কামরান এবার কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক পদ পাচ্ছেন এমন আলোচনা রয়েছে সিলেট নগরীতে। জেলা আওয়ামী লীগের সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরীও কম নন। দিনভর মাঠ চষে বেড়ানো শফিককে ‘চব্বিশ ঘণ্টার রাজনীতিক’ আখ্যা দিয়েছেন তৃণমূলের নেতাকর্মীরা। বঙ্গবন্ধু পরিবারের ঘনিষ্ঠ এই সৈনিকও এবার কেন্দ্রের পদপ্রত্যাশী। মহানগরের সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ দায়িত্ব পালনকালে দুর্নাম কুড়াননি। দলের দায়িত্ব পালনকালে পরিচ্ছন্ন রাজনীতির পাশাপাশি সাংগঠনিক দক্ষতা দেখিয়েছেন তিনি। তিনিও প্রত্যাশা করেন কেন্দ্রের পদ।
কেন্দ্রের পদপ্রত্যাশী মহানগর আওয়ামী লীগের সদ্য সাবেক সভাপতি ও সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান বলেন, দলীয় প্রধান আমাকে যেখানে যে পদের দায়িত্ব দেবেন সেই দায়িত্ব পালনে আমি প্রস্তুত। জেলা আওয়ামী লীগের সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরীও নেত্রীর দিকে তাকিয়ে। তিনি বলেন, ‘সামনে মুজিব বর্ষ, অনেক কাজ। আমার দৃঢ়বিশ্বাস বঙ্গবন্ধু কন্যা বঙ্গবন্ধু সৈনিকদের বসিয়ে রাখবেন না। মহানগরের সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ বলেন, দায়িত্ব দেবেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। আমি তার দিকেই তাকিয়ে আছি।’
.
এই তিন নেতার নামের পাশে বর্তমানে আলোচিত হচ্ছে ব্যারিস্টার এনামুল কবির ইমনের নামও। তরুণ নেতৃত্ব হিসেবে এই নেতাও রয়েছেন কেন্দ্রের পছন্দের তালিকায়।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ ২৪ খবর