কানাইঘাটে ছাত্রলীগ নেতা বেপরোয়া : রাস্তার সরকারী মাইল ফলক ভাংচুর ও দাতার বাড়ীতে হামলা

প্রকাশিত: 6:08 PM, June 23, 2020

কানাইঘাটে  ছাত্রলীগ নেতা বেপরোয়া : রাস্তার সরকারী মাইল ফলক ভাংচুর ও দাতার বাড়ীতে হামলা
কানাইঘাট প্রতিনিধিঃ কানাইঘাট দক্ষিণ বাণীগ্রাম ইউপির আব্দুল হামিদ সড়কের পাকা মাইল ফলক ভাংচুর এবং যুক্তরাজ্য প্রবাসী এম.এ শাকুর সিদ্দিকীর বসত বাড়িতে হামলা ও ভাংচুরের অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানা গেছে। ছাত্রলীগের সাবেক এক নেতা এলাকায় নিজের আধিপত্যকে প্রতিষ্টা করতে একের পর এক হামলা ও ভাংচুর চালাচ্ছেন বলে জানান রাস্তার দাতা যুক্তরাজ্য প্রবাসী দানশীল ব্যক্তিত্ব এম এ শাকুর সিদ্দিকী। তিনি বলেন ছাত্রলীগের সাবেক এই কর্মী কাশেম ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী বেপরোয়া হয়ে অন্যায় লাভের আশায় প্রতিনিয়ত প্রবাসীদের হয়রানী করছে ও প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছে। আমার লোকজনের উপর হামলা করছে। প্রশাসনের সহযোগীতায় আগে ও অনেকবার প্রতিকার পেয়েছি। সে প্রতিপক্ষকে জামায়াত বানানোর চেষ্টা করে ফায়দা হাসিল করে।অভিযোগের প্রেক্ষিতে কানাইঘাট থানা পুলিশের একটি দল আজ শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলে এলাকার লোকজন হাজী আব্দুল হামিদ সড়কের পাকা সড়কের মাইল ফলক ভাংচুর ও শাকুর সিদ্দিকীর বাড়িতে হামলার ঘটনার বর্ণনা করেন। শাকুর সিদ্দিকীর বসত বাড়িতে হামলা, ভাংচুর, মারধর ও সড়কের পাকা মাইল ফলক ভাংচুর করে আব্দুল হামিদ সড়কের নাম পরিবর্তনের ঘটনায় নিজ বাউরভাগ গ্রামের আব্দুল গফুরের পুত্র আবুল কাসেম, আব্দুল হাফিজ মারুফ, বকুল চৌধুরী, মখলিছ মিয়া, শিবলু মিয়াকে অভিযোগে আসামী করা হয়েছে। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বাউরভাগ গ্রামের বাসিন্দা বর্তমানে যুক্তরাজ্যে অবস্থানরত এম.এ শাকুর সিদ্দিকী এলাকার মানুষের যাতায়াতের সুবিধার্থে নিজ প্রচেষ্টা ও অর্থায়নে একটি কালভার্ট সহ তারই প্রয়াত দাদা হাজী আব্দুল হামিদ এর নামে বাউরভাগ রাস্তার পাকা করনের কাজ শুরু করেন। সম্প্রতি সড়কের ১ কিলোমিটার সরকারী অর্থায়নে পিচের কাজ সম্পন্ন হয়। সরকারী ভাবে সড়কটির নাম হাজী আব্দুল হামিদ সড়ক করা হলে আবুল কাসেম গংরা প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে নানা ভাবে এতে বাঁধা প্রদান করে আসছিল। তারা বেশ কয়েকবার আব্দুল হামিদ সড়কের পাকা তোরণের নাম ফলক ভাংচুর এবং রাস্তার পাকা করণের কাজে বাঁধা প্রদান সহ প্রবাসী শাকুর সিদ্দিকীকে নানা ভাবে হুমকি প্রদান এবং তার পারিবারিক ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার অপচেষ্টা এবং তার স্বজনদের নানা ভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আসছিল। গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে প্রকাশ্যে আবুল কাসেম, আব্দুল হাফিঝ মারুফ গংরা দেশীয় ধারালো অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সড়কারী অর্থায়নে নির্মিত হাজী আব্দুল হামিদ সড়কের একটি মাইল ফলক ভাংচুর ও সড়কের নাম পরিবর্তন করার পাশাপাশি হামলাকারীরা প্রবাসী শাকুর সিদ্দিকীর বসত বাড়িতে গিয়ে হামলা ও ভাংচুর চালায়। তারা বসত ঘরের বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর, ক্ষতিসাধন এবং শাকুর সিদ্দিকীর বসত বাড়িতে বসবাসরত ইমদাদুর রহমান মড়াকে মারধর করে আহত করে। হামলাকারীরা শাকুর সিদ্দিকী দেশে আসলে তাকে গুলি করে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দিয়ে চলে যায়। মামলার বাদী ইমদাদুর রহমান জানান, এর আগে হামলাকারী আবুল কাসেম ও আব্দুল হাফিজ মারুফ তাদের নিজস্ব ফেসবুক আইডি থেকে শাকুর সিদ্দিকীর মেসেঞ্জারে শাকুর সিদ্দিকী দেশে আসলে তাকে গুলি করে মারবে, আব্দুল হামিদ সড়কের নাম পরিবর্তন করবে মর্মে স্ট্যাটাস প্রদানের পর এই হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটে।
  •  

সর্বশেষ ২৪ খবর