সিলেট কে শিক্ষা সমৃদ্ধ শিক্ষা নগরী গড়ে তুলতে চাই : মেয়র আরিফ

প্রকাশিত: 9:41 PM, January 28, 2020

সিলেট কে শিক্ষা সমৃদ্ধ শিক্ষা নগরী গড়ে তুলতে চাই : মেয়র আরিফ

ডেস্ক প্রতিবেদন: সিলেটকে শিক্ষা নগরী হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে গঠিত শিক্ষা উপদেষ্টা কমিটির আহবায়ক হিসেবে সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর হায়াতুল ইসলাম আকঞ্জি নাম ঘোষনা করেছেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চেীধুরী। ২৭ জানুয়ারি সোমবার সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর হায়াতুল ইসলাম আকঞ্জি সরকারি চাকরি থেকে অবসর গ্রহণ উপলক্ষে কলেজের ছাএীদের উদ্যোগে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্টানে তিনি এ ঘোষনা দেন। একই অনুষ্টানে কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল প্রফেসর ফাহিমা জিন্নুরায়েন কে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।
সিলেট সরকারী মহিলা কলেজ অডিটরিয়ামে কলেজের ছাত্রীদের উদ্যোগে কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর হায়াতুল ইসলাম আকঞ্জি ও উপাধ্যক্ষ প্রফেসর ফাহিমা জিন্নুরায়েন এর অবসরোত্তর ছুটিতে গমন উপলক্ষে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। ছাত্রী সংসদের ভারপ্রাপ্ত অধ্যাপক প্রফেসর মোঃ মছব্বির চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সহকারী অধ্যাপক মোস্তাক হোসেন এর পরিচালনায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক প্রফেসর মোঃ জামালুর রহমান, সহকারী অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ,চাত্রীদের পক্ষে রুকাইয়া ইসলাম,সামিরা জামান প্রীতি। অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করে আনিকা তাবাসসুম চৌধুরী।সংবর্ধিতদের হাতে ক্রেষ্ট সহ বিভিন্ন উপহার তুলে দেন শেঁওতি আলম, অদিতি সিনহা সহ ছাত্রীরা।
সংবর্ধনা অনুষ্টানে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, সুশিক্ষা ছাড়া জাতির উন্নয়ন সম্ভব নয়। তাই নতুন প্রজম্মকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। সিলেটীদের শিক্ষার পুরনো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে হবে। পুর্বে যারা সচিবালয় সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের উচ্চ আসনে অধিষ্টিত ছিলেন তারা এখন অবসর গিয়ে আমাদের সে গৌরব ও অবস্থান হারিযে ফেলছি । নতুন প্রজন্ম সেই ঐতিহ্যকে উদ্ধার করতে এগিয়ে আসতে হবে। আধ্যত্নিক, ধমীয় সম্পীতি, ইকো ও পর্যটন নগরী সিলেট কে শিক্ষা সমৃদ্ধ শিক্ষা নগরী গড়ে তুলতে চাই।
সংবর্ধনার জবাবে অধ্যক্ষ প্রফেসর হায়াতুল ইসলাম আকঞ্জি বলেন, শিক্ষকদের প্রতি শিক্ষাথীদের সম্মান প্রদর্শন শিক্ষক হিসাবে আমাদের সম্মানিত ও উজ্জিবীত করে। এজন্য আমি আজ আবেগ আপ্লুত। আমরা চলার পথে বিভিন্ন স্থানে আমাদের শিক্ষাথীরা আমাদেরকে সালাম করে সম্মান করে তখন আমরা পুলকিত হই। আমরা তখন দোয়া করি শিক্ষাথীরা যেন সামনের দিকে এগিয়ে যায়। শিক্ষাথীরা উচুস্তরে যায় সফলতা অর্জন করে। শিক্ষার্থীদের সাফল্যে সবচেযে বেশী আনন্দিত হন শিক্ষকরা, শিক্ষাথীদের সামনের দিকে এগিযে যাওয়া আমাদের সবচেয়ে বড় সুখ । সংবর্ধনার জবাবে উপাধ্যক্ষ প্রফেসর ফাহিমা জিন্নুরায়েন শিক্ষাথীদের সাফল্য ও সুন্দর জীবন কামনা করেন।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ ২৪ খবর