সিলেট রেজিস্টারি মাঠে তালামীযের সম্মেলন অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: 12:31 AM, December 29, 2019

সিলেট রেজিস্টারি মাঠে তালামীযের সম্মেলন অনুষ্ঠিত

ডেস্ক প্রতিবেদন : উপমহাদেশের প্রখ্যাত বুজুর্গ, মুজাদ্দিদে যামান, শামসুল উলামা হযরত আল্লামা ফুলতলী ছাহেব
কিবলাহ (র.)-এর প্রতিষ্ঠিত সুন্নিয়তের অতন্দ্র প্রহরী ছাত্র কাফেলা বাংলাদেশ আনজুমানে তালামীযে ইসলামিয়া সিলেট পশ্চিম জেলা শাখার কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহর মুহতারাম সভাপতি হযরত আল্লামা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী। প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি ছাত্রনেতা আখতার হোসাইন জাহেদ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আল্লামা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী বলেন- মানুষের মধ্যে ধর্মচর্চা ছাড়া মানবিক গুণাবলি আসতে পারে না। অফিসে সিসি ক্যামেরা লাগিয়ে ঘুষ বন্ধ করা যাবে না, মানুষের মন মানসিকতার পরিবর্তন করতে হবে। আমি তালামীযে ইসলামিয়ার কর্মীদের থেকে এই প্রত্যাশা করি, তারা যেন দেশের স্কুল কলেজের ছাত্রদের নৈতিক জ্ঞান ও আখেরাতমুখী হওয়ার প্রতি উদ্বুদ্ধ করে, তবেই এই দেশে ঘুষ, দুর্নীতি, জুলুম দূর হবে। আমরা আউলিয়ায়ে কেরামের অনুসারী। আউলিয়ায়ে কেরাম ইসলামের জন্য নিজের জান মাল বিলিয়ে দিয়েছেন। আজকে যারা আউলিয়ায়ে কেরামদের নিয়ে সমালোচনা করে তালামীয কর্মীদেরকে তাদের মোকাবেলায় প্রস্তুত হতে হবে। তিনি আরও বলেন, আমাদের কাজ আনন্দ মিছিল নয় বরং মুক্তির মিছিলে শামিল হওয়া। তালামীযে ইসলামিয়ার কর্মীদেরকে ইহকালীন কল্যাণ ও পরকালীন মুক্তির মিছিলে শামিল হতে হবে।

তিনি মোবাইলের অপব্যবহার তুলে ধরে বলেন, এর ফলে হাজারো স্বামী-স্ত্রীর বিবাহ বিচ্ছেদ হচ্ছে, লক্ষ লক্ষ ছেলে মেয়ে মা বাবার অবাধ্য হচ্ছে, ছাত্রদের ফজর নামায পড়ার অভ্যাস নষ্ট হচ্ছে, দেশে যুলুম বাড়ছে। তাই মুক্তির মিছিলে আসতে হলে এগুলো বর্জন করতে হবে। তিনি বলেন, ছাত্রসমাজকে বেনামাযী থেকে নামাযী ও মিথ্যাবাদী থেকে সত্যবাদী বানানো, মা-বাবার অবাধ্য সন্তানকে বাধ্য করা এবং মেধাবী, জ্ঞানী ও সচ্চরিত্রবান হওয়ার প্রতি আহ্বান করা তালামীযের দায়িত্ব। তিনি আরো বলেন, যদি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যে বঞ্চিত করেছে তাকে কাছে টেনে আনা, যে দু:খ দিয়েছে তাকে ক্ষমা করা এবং যে দুর্ব্যবহার করে তার সাথে সদাচরণ করার নীতি রাষ্ট্রীয়ভাবে বাস্তবায়নের ঘোষণা দেন তাহলে সামাজিক সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠিত হবে এবং অন্যায়, ঘুষ ও দুর্নীতি বন্ধ করা সম্ভব হবে।

গতকাল শনিবার (২৮ ডিসেম্বর) ঐতিহাসিক সিলেট রেজিস্ট্রারি মাঠে সিলেট পশ্চিম জেলা সভাপতি শেখ আলী হায়দারের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক কবির আহমদের পরিচালনায় সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহর মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা মুফতি এ কে এম মনোওর আলী, তালামীযে ইসলামিয়ার কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক হুমায়ূনুর রহমান লেখন, সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা আজির উদ্দিন পাশা, মাওলানা নজীর আহমদ হেলাল, মাওলানা ফখরুল ইসলাম, সহ সভাপতি মাওলানা আতাউর রহমান, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মোজতবা হাসান চৌধুরী নুমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সৈয়দ আহমদ আল জামিল, অফিস সম্পাদক আব্দুল মুহিত রাসেল, সহ অফিস সম্পাদক হাফিজ তৌরিছ আলী, সুনামগঞ্জ জেলা আল
ইসলাহর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মাহবুবুর রহমান তাজুল ও বার্মিংহাম শাখার সভাপতি মাওলানা হুছাম উদ্দিন আল হুমায়দী ।

সম্মেলনে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন হাউসা আলিম মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা আজিজ আহমদ, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান, তালামীযে ইসলামিয়া সিলেট মহানগরীর সভাপতি মো. জাহেদুর রহমান, সাবেক সভাপতি এনাম উদ্দিন, সিলেট পূর্ব জেলা সভাপতি কামাল আহমদ, সাবেক সভাপতি মাওলানা সাদ উদ্দিন ও ভূরকী হাফিজিয়া দাখিল মাদরাসার শিক্ষক হাফিজ মাওলানা শফিকুর রহমান।

সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, সিলেট পশ্চিম জেলা সহ সভাপতি মো. আবুল কাশেম, সাংগঠনিক সম্পাদক কুতুব আল ফরহাদ, সিলেট মহানগরীর সাংগঠনিক সম্পাদক মারুফ আহমদ, অর্থ সম্পাদক আজাদ হোসাইন, সুনামগঞ্জ জেলা অর্থ সম্পাদক আবু হেনা ইয়াসিন, সিলেট পূর্ব জেলা অর্থ সম্পাদক লবিবুর রহমান লাবলু, সিলেট পশ্চিম জেলা সহ সাংগঠনিক সম্পাদক সালেহ আহমদ, প্রচার সম্পাদক শেখ রেদওয়ান হোসাইন, অর্থ সম্পাদক ইসলাম উদ্দিন লতিফি, সহ অফিস সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, প্রশিক্ষন সম্পাদক আব্দুল আজীজ লতিফী, সহ প্রশিক্ষণ সম্পাদক রেজাউল করিম, শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক খালেদ আহমদ, তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক রুকন উদ্দিন, সহ তথ্য ও প্রযুক্তি
সম্পাদক আব্দুল হান্নান, সদস্য শেখ বিলাল আহমদ, রুহুল আমীন তালুকদার, আব্দুল মুতলিব, বালাগঞ্জ উপজেলা সভাপতি নাজমুল ইসলাম শিহাব, সাধারণ সম্পাদক ফয়ছল আহমদ মিছলু, ওসমানীনগর সভাপতি মাহবুব আহমদ খান, সাধারণ সম্পাদক ফয়ছল ইসলাম, মোগলাবাজার থানা সভাপতি মো. গিয়াস উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক ইমরান আহমদ সূফী, দক্ষিণ সুরমা থানা সভাপতি ফখরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, সিলেট সদর পূর্ব উপজেলা সভাপতি শাহীন আহমদ, সহ সভাপতি রুকন উদ্দিন, সিলেট সদর পশ্চিম উপজেলা সভাপতি রইছ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মইনুল ইসলাম মাহিন, বিশ্বনাথ দক্ষিণ উপজেলা সভাপতি আব্দুল মুক্তাদির ফয়ছল, সাধারণ সম্পাদক হোসাইন আহমদ রাজন, বিশ্বনাথ উত্তর উপজেলা ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জামাল আহমদ, সাধারণ সম্পাদক বায়েজিদ আহমদ, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা সভাপতি নূর হোসাইন, শাহপরান (র.) থানা সভাপতি আবু বকর প্রমুখ।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ ২৪ খবর