সুনামগঞ্জে ২ ছাত্রীকে কোদাল দিয়ে পেটানোর ঘটনা তদন্তের নির্দেশ

প্রকাশিত: 11:46 AM, December 30, 2019

সুনামগঞ্জে ২ ছাত্রীকে কোদাল দিয়ে পেটানোর ঘটনা তদন্তের নির্দেশ

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মঈনুল হক কলেজের দুই ছাত্রীকে কোদাল দিয়ে পেটানোর ঘটনা তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইয়াসমিন নাহার রুমাকে তদন্ত কমিটি গঠন করে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

এদিকে, ঘটনার প্রতিবাদে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার জয়নগর বাজারে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেছেন কলেজের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। গতকাল রবিবার দুপুরে কলেজ ক্যাম্পাস থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি ক্যাম্পাস ঘুরে জয়নগর বাজারে এসে প্রতিবাদসভার মাধ্যমে শেষ হয়। ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা অধ্যক্ষ মতিউর রহমান ও তাঁর স্ত্রী উপাধ্যক্ষ আফরোজা পারভিনের পদত্যাগ দাবি করেন।

প্রতিবাদসভায় কলেজের সাধারণ শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন নিজের ইচ্ছামতো পরিচালনা কমিটি করে স্বৈরতান্ত্রিক উপায়ে কলেজ পরিচালনা করছেন অধ্যক্ষ মতিউর রহমান ও তাঁর স্ত্রী উপাধ্যক্ষ আফরোজা পারভিন। শিক্ষকরা প্রতিবাদ করলে তাঁদের বদলি করে দেওয়া হচ্ছে। শিক্ষার্থীরা অনিয়মের প্রতিবাদ করলে তাদের বহিষ্কারের হুমকি দেওয়া হয় এবং পরীক্ষায় অকৃতকার্য করা হচ্ছে।

গত শনিবার (২৮ ডিসেম্বর) দুই এইচএসসি পরীক্ষার্থীকে কোদালের হাতল দিয়ে পিটিয়ে আহত করেন সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মঈনুল হক কলেজের অধ্যক্ষ। আহত ওই দুই ছাত্রীকে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওই ঘটনায় কলেজের সাধারণ শিক্ষার্থীরা কলেজের অধ্যক্ষের বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেন।

জানা যায়, কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী শাখাইতি গ্রামের তাসলিমা খানম ও মাগুরা গ্রামের নাঈমা আক্তার নির্বাচনী পরীক্ষায় এক বিষয়ে অকৃতকার্য হয়। আজ শনিবার দুপুর ১২টার দিকে তারা কলেজে গিয়ে অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের সঙ্গে দেখা করতে যায়। তখন অধ্যক্ষ কলেজের বাগানে ছিলেন। সেখানে গিয়ে তারা শিক্ষককে পরীক্ষায় পুনরায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়ার অনুরোধ জানায়।

এসময় অধ্যক্ষ মতিউর রহমান রেগে যান এবং বাগানে থাকা কোদালের হাতল দিয়ে ওই দুই ছাত্রীকে বেধড়ক পেটাতে শুরু করেন। তাদের কান্না ও চিৎকারে অন্যান্য শিক্ষার্থীরা দৌড়ে আসে। তাদের উদ্ধার করে স্থানীয় জয়নগর বাজারে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। পরে তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ ২৪ খবর